এই সময় সব ফেরি বন্ধ থাকায়, সবাই ঝুঁকি নিয়ে লঞ্চে যাত্রী পারাপার চলছে।

0
9

ফেরি বন্ধ, ঝুঁকি নিয়ে লঞ্চে যাত্রী পারাপার

গত ৩ দিন ধরে মুন্সিগঞ্জের শিমুলিয়া ঘাট and মাদারিপুরের বাংলাবাজার ঘাট থেকে ফেরি চলাচল বন্ধ রয়েছে তীব্র স্রোতের কারনে।
so এতে দক্ষিনাঞ্চলে যাতায়াতকারী মানুষের স্বাস্থবিধী উপেক্ষা করেও যাত্রীর ভীর বেড়ে গেছে পারাপার হওয়ার অপেক্ষায়,
উত্তরাঞ্চল এলাকার বন্যার পানি আসার কারনে এবং পদ্মা নদীতে পানি বাড়ার কারনে
তীব্র স্রোত দেখা দেয়, so এতে বুধবার বেলা ২’টা থেকে বি আই ডব্লিউ টি সি
ফেরি চলাচল পুরোপুরি বন্ধ করে দেয় এর কারনে যাত্রীর চাপ সামলাতে বেছে নেয় যাত্রীবাহী লঞ্চ।

প্রতিটি লঞ্চে ধারণক্ষমতার চেয়ে ২০ থেকে ৩০ জন বেশি যাত্রী তোলা হচ্ছে,
সেখানে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করছেন লঞ্চ মালিক রা।

but ধারন ক্ষমতার চাইতে অতিরিক্ত যাত্রী বহন করছে যদিও এই যাত্রী সামাল দিতে হচ্ছে বাড়তি ঝুকি নিয়ে।
so পদ্মা নদীর স্রোতে and ঢেউ থাকা স্বত্তেও লঞ্চ চলাচল করছে so এতে দূর্ঘটনার শিকার হওয়ার সম্ভাবনা বেশি।
because ফেরির সাথে স্পিড বোটও বন্ধ রয়েছে so লঞ্চের উপর যাত্রীর প্রভাব বেশি পরেছে।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ পরিবহন কর্তৃপক্ষ

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ পরিবহন কর্তৃপক্ষ এর (বি আই ডব্লিউ টি এ) শিমুলিয়া নৌবন্দর কর্মকর্তা শাহাদাত হোসেন বলেন,
বর্তমানে এ রুটে ৮৭ টি লঞ্চ চলা চল করছে। ফেরি ও স্পিডবোট চলা চল বন্ধ থাকায় লঞ্চে যাত্রীর চাপ বেশি।

ফলে পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত ফেরি চালু হওয়ার সম্ভবনা নেই। গত কয়েক দিনের তুলনায় পদ্মা নদীর পানি ও স্রোতের তীব্র

এ সুযোগ কাজে লাগিয়ে because প্রতিটি লঞ্চে ধারণ ক্ষমতার চেয়ে বেশি যাত্রী নেওয়া হচ্ছে।

BIWTC শিমুলিয়া ঘাট পরিদর্শক জানান পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত ফেরি চালু হওয়ার বা করার কোনো সম্ভাবনা নেই।
১৩’টি ফেরি নোঙ্গর করা আছে অন্য ৪’টি because ফেরি অপর একটি রুটে পাঠিয়ে রাখা হয়েছে
এর সাথে নতুন আরো ২টা ফেরি যুক্ত হবে। and স্রোত কমলে নদি স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরলে ফেরি চালুর সম্ভাবনা আছে।

একাধিক যাত্রী বলেন, so ঘাটে লঞ্চ because ভেড়ামাত্রই সবাই হুমড়ি খেয়ে পড়ছেন।
পদ্মার তীব্র স্রোত আর ঢেউ থাকায় ঝুঁকি নিয়েই লঞ্চগুলো চলাচল করছে।because এতে দুর্ঘটনার আশঙ্কা রয়েছে।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন because করপোরেশন (বি আই ডব্লিউ টি সি) because শিমুলিয়া ঘাটের ব্যবস্থাপক
(বাণিজ্য) ফয়সাল আহমেদ বলেন, ঘাট এলাকায় কোনো গাড়ি অপেক্ষ মাণ নেই।
তাও বেড়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here