আমাদের ছোটবেলায় প্রথম যখন মোবাইল ফোন দেখেছি তখন তাকে বলতে শুনেছি “ওয়্যারলেস”। ঢাকা শহরের কিছু বাড়িওয়ালাদের থাকতো। টেলিফোন নিয়ে কৌতুহলটা কমে গিয়েছিল এই ওয়্যারলেসের কারণেই।

মোবাইল ফোনের বিবর্তন !!

যাই হোক তারপর নোকিয়া ৩৩১০ সহ বিভিন্ন মোবাইল দেশজুড়ে ছড়াতে লাগলো। প্রথম দিকে আমাদের গ্রামে যখন মোবাইল ব্যবহার শুরু হয় তখন মিনিট হিসেবে কল বিক্রি করতো। মনে রাখতে হবে ইনকামিং কলেও চার্জ হতো। ভাবতাম কি না মনে নেই যে আমিও একদিন একাধিক মোবাইল ব্যবহার করবো। তবে তারো অনেক পরে যখন কয়েক ঘরে মোবাইল চলে এসেছে, যখন আর নেটওয়ার্ক পেতে আমগাছে ওঠা লাগে না। তখন বাবাকে বলেছিলাম মোবাইল কেনার কথা। অবশ্য বাবার তখন সামর্থ থাকলেও প্রয়োজন ছিল না, তাই তিনি কিনতে চাননি।

আজ গরীব-ধনী সকলের ঘরেই একাধিক মোবাইল ফোন, বলা চলে প্রতিটি ব্যক্তিরই মোবাইল আছে। আছে ভিক্ষাবৃত্তি করা লোকেরও, এমনকি কিশোরদের হাতে মোবাইল এখন আর বেমানান দেখায় না। তারপরও জানতে ইচ্ছে করে প্রথম মোবাইল কোনটি ? কেমন ছিল দেখতে? কেই বা তা বানিয়েছিলেন? এসব প্রশ্নের উত্তর দিচ্ছি এক এক করে

ড: মার্টিন কুপার

মটোরলা কোম্পানিতে কর্মরত ডঃ মার্টিন কুপার এবং জন ফ্রান্সিস মিচেলকে প্রথম মোবাইল ফোনের উদ্ভাবকের মর্যাদা দেয়া হয়ে থাকে। তাঁরা ১৯৭৩ সালের এপ্রিলে প্রথম সফলভাবে একটি প্রায় ১  কেজি ওজনের হাতে ধরা ফোনের মাধ্যমে কল করতে সক্ষম হন।

DynaTAC 8000x

মোবাইল ফোনের প্রথম বাণিজ্যিক সংস্করণ বাজারে আসে ১৯৮৩ সালে, ফোনটির নাম ছিল মোটোরোলা ডায়না টিএসি ৮০০০এক্স (DynaTAC 8000x) । ১৯৯০ সাল থেকে ২০১১ সালের মধ্যে পৃথিবীব্যাপী মোবাইল ফোন ব্যবহারকারীর সংখ্যা ১২.৪ মিলিয়ন থেকে বৃদ্ধি পেয়ে ৬ বিলিয়নের বেশি হয়ে গেছে। পৃথিবীর মোট জনসংখ্যার প্রায় ৮৭% মোবাইল ফোন যোগাযোগের আওতায় এসেছে । এরপরে আজ ২০২০ সালে মোবাইলের ব্যবহার কি পরিমান বেড়েছে তা পাঠক মাত্রই জানেন।

লেখক: মাহী মহিউদ্দীন CEO of M-tech care

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *