অনেকেই দূর্ভোগ এড়াতে নতুন ল্যাপটপ কেনেন। পরে দেখা গেল ৬ মাস না যেতেই নতুন ল্যাপটপে বিভিন্ন ধরনের সমস্যা দেখা দিচ্ছে। যার জন্য লোকটি সস্তায় পুরাতন ল্যাপটপ কিনতে চায়নি, এখন তাই হলো।

আপনার নতুন ল্যাপটপ যে কয়টি ভুলে সমস্যা সৃষ্টি করবে তা নিয়ে আজ আলোচনা করবো। সাথে থাকবে- কি কি করতে হবে, ভালো রাখার জন্য।

১. তাপমাত্রা জনিত সমস্যা। অর্থাৎ ল্যাপটপের ভিতরে তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রনের জন্য যে ব্যবস্থা আছে, তা যদি কোনো ভাবে বাধা গ্রস্থ হয় তবে ল্যাপটপে সমস্যা হতে পারে। যেমন নীল পর্দা, রিস্টার্ট নেয়া, হ্যাং করা ইত্যাদি।

প্রতিকার: ভিতরে বাতাস প্রবেশ বা বের হওয়ার স্থানগুলো যাতে ব্লক বা বন্ধ না থাকে সেদিকে খেয়াল রাখা। বিছানায়, বালিশে কিংবা নরম কোন জায়গায় ( রানের উপর) রেখে চালানো যাবে না।

২. কীবোর্ড সংক্রান্ত সমস্যা। কোনো বর্ণ একাধিকবার উঠতে থাকে বা কোনো বর্ণ ওঠেই না। কিংবা আপনি একজায়গায় ক্লিক করছেন, তো অন্য কোন ফোল্ডার ওপেন হয়ে যাচ্ছে বা ডিলিট হয়ে যাচ্ছে অটোমেটিক।নতুন ল্যাপটপের বেশিরভাগ এই সমস্যাটা দেখা যায় কিছু দিন পরই। কারণ কেনার পর অনেকেই ল্যাপটপের সাথে অর্থাৎ বডিতে লাগানো কি-বোর্ড ব্যবহার করেন না, নষ্ট হবে বলে কিংবা ভালো লাগে না তাই। এর ফলই কি-বোর্ডে সমস্যা দেখা দেয়।

প্রতিকার: বুঝতেই পারছেন, আপনার ল্যাপটপের সাথের বিল্ড-ইন কী-বোর্ডই আপনাকে যথাসাধ্য ব্যবহার করতে হবে। যত বেশী ব্যবহার করবেন ততই সমস্যা কম হবে।

৩. ব্যাটরী ব্যাক-আপ কমে যায় বা থাকেন। অর্থাৎ বিদ্যুৎ চলে গেলে সাথে সাথে কিংবা একটু পরই অফ হয়ে যাচ্ছে। সবসময় চার্জে লাগিয়ে চালালে এ সমস্যা দেখা দেয়। কিংবা অল্প চার্জ সহ বেশ কয়েকদিন না ব্যবহার করে ফেলে রাখলে।

প্রতিকার: কখনোই ১৫% এর নিচে চার্জ নামানো যাবে না। তার আগেই চার্জার লাগাতে হবে। আবার ১০০% হলে চার্জার খুলে ব্যবহার করতে হবে। কোথায় গেলে বা কয়েকদিন ব্যবহার না করা হলে ফুল চার্জ দিয়ে ব্যাটরি খুলে রাখতে হবে (যাদের ল্যাপটপের ব্যাটরি খোলা যায় না তাদের কথা ভিন্ন)। তাহলেই আশা করা যায় আপনার ল্যাপটপের ব্যাটরি অনেক দিন ভালো সার্ভিস দিবে।

নিয়মানুসারে যত্ননিন, আপনার কম্পিউটার ভালো রাখুন।

লিখেছেন: মাহী মহিউদ্দীন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *