শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার প্রস্তুতি চলছে বেশ কিছু শর্ত ও বিধিনিষেধ মেনে

0
13

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার প্রস্তুতি চলছে বেশ কিছু শর্ত ও বিধিনিষেধ মেনে

করোনা ভাইরাসের প্রকোপের কারনে বাংলাদশের স্কুল কলেজ সহ and
শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখা হয়েছে বেশ কয়েক মাস ধরে। so
একাধিক বার চেষ্টা করেও খোলা যায়নি প্রতিষ্ঠান গুলি যদিও but
বন্ধের পর থেকেই বিভিন্ন মেয়াদে কয়েক দফায় ছুটি বাড়ানো হচ্ছে। Because
সর্বশেষ আরেক দফা বাড়িয়ে প্রতিষ্ঠানিক ছুটির মেয়াদ ১১ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে।
but কঅবে নাগাদ পুরোপুরি খোলা হবে প্রতিষ্ঠান এই ব্যাপারে বৈঠক হবে সেপ্টেম্বর এক তারিখে।
but যেদিন থেকেই খোলা হোক ধাপে ধাপে পর্যায়ক্রমে খোলা হবে বলে জানা যায়।

and কয়েক দিন আগে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ ছিল so
প্রতিষ্ঠান গুলি যত দ্রুত সম্ভব খুলে দেয়ার প্রস্তুতি নেয়া হোক। and
প্রধানমন্ত্রীর এই কথার জের ধরে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলি পরিষ্কার সংস্কার বর্ধন চলছে। but
তবে অক্টোবরের ১৫ তারিখের পর থেকে বিশ্ববিদ্যালয় গুলি খোলা যাবে বলে but
সিদ্ধান্ত নেয়া হয় ২৬ আগস্টে শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনির সভাপতিত্বে এক ভারচুয়াল সভায়। so
সভায় আরো জানানো হয় আগামি ২ তারিখে চুড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়া হবে পরবর্তী সভা ডেকে এবং সেখানে নেয়া

সিদ্ধান্ত মিডিয়া ও গনমাধ্যমকে জানিয়ে দেয়া হবে বলে জানান শিক্ষামন্ত্রী। and
আজ ২৬ তারিখ দুপুরে শিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং প্রাথমিক but
ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের so সমন্বয়ে এক বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।
Because করোনা পরিস্থিতি উন্নতির দিকে আসার কারনে
সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার চিন্তা করেছে বাংলাদেশ সরকার। and

করোনা সংক্রমণের হার নিচের দিকে আসার কারনে and
সরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী সব দিক বিবেচনা করে সকল প্রতিষ্ঠান
খুলে দেয়ার জন্য জোর প্রস্তুতি চলছে। Because শিক্ষা ব্যাবস্থা ভেঙে না পড়ার লক্ষে
বিভিন্ন ব্যাবস্থা গ্রহন করা হচ্ছে। and ভারচুয়ালি সভায় শিক্ষা মন্ত্রী আরো বলেন
প্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার পর স্বাস্থবিধী মানা হচ্ছে কিনা এই ব্যাপারে প্রতিবেদন দাখিল করতে হবে। so
প্রতিষ্ঠানের সকল সদস্য কিভাবে স্বাস্থবিধী মেনে ক্লাস নিবে সেই বিষয়ে চিন্তা চলছে।

২৪ আগস্ট শিক্ষামন্ত্রী শোক দিবসের এক আয়োজনে বলেছিলেন

and এর আগে ২৪ আগস্ট শিক্ষামন্ত্রী শোক দিবসের এক আয়োজনে বলেছিলেন আব প্রস্তুতি চলছে,
শিগগিরই খোলা হবে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান তবে but অপেক্ষা শুধু আক্রান্তের হার একটু কমে যাওয়ার।
তিনি আরো বলেন সংক্রমণের হার কমে যাচ্ছে এটা সুখবর। so
এই ধারাবাহিকতা বজায় থাকলে খুব শিঘ্রই স্কুল কলেজ খুলে দেয়া হবে। so
উল্লেখ্য গত বছরের মার্চের ৮ তারিখে করোনা আক্রান্ত হওয়ার খবর আসলে
১৭ মার্চ থেকে সাধারণ ছুটি দেয়া হয় সব স্কুল কলেজ হাইস্কুল প্রাইমারি সহ সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান।

so এই ১৭ মাসে কয়েক দফা ছুটির মেয়াদ বাড়ানো হলেও করোনা ভাইরাস
এর আক্রান্তের অবস্থা তীব্র অবনতি হলে আর খোলা হয়নি তবে but
পর্যায়ক্রমে প্রতিষ্ঠান গুলি খুলে দেয়ার কথা জানান শিক্ষামন্ত্রী। and
সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও যত দ্রুত সম্ভব প্রতিষ্ঠান গুলি খুলে দেয়ার কথা জানালে
সংশ্লিষ্ট সবাই জোর তাগিদ দিয়ে ব্যাবস্থা নিচ্ছেন। Because
সর্বশেষ আগামি ১১ তারিখ পর্যন্ত ছুটির মেয়াদ বাড়ানো হয় মন্ত্রণালয়ের তরফ থেকে। and

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান and গুলি খুলে দেয়ার পরামর্শ দিয়েছেন স্বাস্থ অধিদপ্তর। তবে but
স্বাস্থবিধী মানার ব্যাপারে কঠোর নজরদারি দেয়ার কথাও জানান তারা। Because
অন্যান্য দেশের তুলনায় বাংলাদেশে ছাত্র ছাত্রী বেশি উপস্থিত হয় ক্লাসে তাই
সংক্রমনের দিক থেকে বেশি ভয় পাচ্ছে শিক্ষা সংক্রান্ত সবাই। so
Because স্বাস্থ মন্ত্রণালয়ের দেয়া বিবৃতি থেকে জানা যায় ২৪ তারিখ সকাল থেকে
২৫ তারিখ সকাল পর্যন্ত ২৪ ঘন্টায় মৃত হওয়া ১১৪ জন সহ মৃতের সংখ্যা দাঁড়ালো সাড়ে ২৫ হাজারের বেশি।
and আক্রান্ত হওয়া ৪৯০০ এর অধিক ব্যাক্তি সহ মোট আক্রান্ত হলো ১৪ লাখ ৭৭ হাজারের বেশি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here